সাতক্ষীরায় আবাসিক হোটেলের আড়ালে ভয়ঙ্কর যে তথ্য

0
101

সাতক্ষীরা শহরে গড়ে ওঠা আবাসিক হোটেলগুলোর আড়ালে রমরমা চলছে মাদক ব্যবসা। বড় বড় সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে হোটেলের বিভিন্ন নাম দিয়ে প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে চালিয়ে যাছে রমরমা এ ব্যবসা। অল্প সময়ে অতি লাভজনক হওয়ায় মালিক বা আবাসিক হোটেলগুলো লিজ নিয়ে অনেকেই গড়ে তুলেছে মাদক ব্যবসার গোপন সিন্ডিকেট। আবাসিক হোটেলের আড়ালে মাদকের ব্যবসা করা হচ্ছে এমনই একটি আবাসিক হোটেলের নাম ‘সম্রাট প্লাজা আবাসিক হোটেল’। শহরের পলাশপোলে অবস্থিত এই আবাসিক হোটেলে দীর্র্ঘদিন যাবৎ চলছে মাদকের ব্যবসা। বিভিন্ন প্রান্ত হতে মাদক ব্যবসায়ী বা মাদকসেবীরা এখানে এসে মাদক ক্রয়-বিক্রয় ও মাদক সেবন করে থাকে।

এরই সূত্র ধরে গতকাল সোমবার দুপুর ১২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সম্রাট প্লাজা আবাসিক হোটেলে অভিযান চালায় সাতক্ষীরা মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। ৬০ পিছ ইয়াবা সহ আটক করা হয় সাতক্ষীরার শহরের পলাশপোল গ্রামের মৃত হযরত আলীর ছেলে সিদ্দিকুর রহমান (৩৮) ও হোটেল সম্রাটপ্লাজা লিজ নিয়ে ব্যবসা করতে আসা খুলনার ডুমুরিয়ার সাদিয়া গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে এইচ এম এ দাউদকে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক স্থানীয় বলেন, ডুমুরিয়া হতে সাতক্ষীরায় এসে বসির আহমেদের কাছ থেকে ‘সম্রাট প্লাজা আবাসিক হোটেল’ ভাড়া নিয়ে দাউদ দীর্ঘদিন যাবৎ মাদকের ব্যবসা করে আসছে। তার যত কার্যক্রম ওই হোটেলের মধ্যে থেকে হয়। মাদক ব্যবসায়ীর জগৎএ সে একজন গডফাদার। সিদ্দিকুরের মতো অনেকেই তার এই মাদক ব্যবসার সহযোগী।

এ ব্যাপারে জানার জন্য ‘সম্রাট প্লাজা আবাসিক হোটেল’ লিজ নিয়ে ব্যবসা পরিচালিত করা এইচ এম এ দাউদের ফোনে বাবার কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

সাতক্ষীরা মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক হাশেম আলী বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে হোটেল সম্রাট প্লাজার পঞ্চম তলার ৫১৫ নং রুম হতে ৬০ পিছ ইয়াবাসহ সিদ্দিকুর রহমানকে ও দ্বিতীয় তলার ২১১ নং রুম হতে সামান্ন গাঁজার গুঁড়া সহ দাউদকে আটক করা হয়েছে। সিদ্দিকুরের বিরুদ্ধে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে সাতক্ষীরা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে এবং সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার তহমিনা খাতুন ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে দাউদকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করেছে।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মারুফ আহমেদ বলেন, এ ব্যাপারে আমাদের জানা নেই। তবে হোটেলের অভ্যন্তর হতে মাদক ব্যবসায়ী

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here